এশিয়া কাপের আগে ভারতীয় খেলোয়াড়দের কড়া হুঁশিয়ারি দিল বিসিসিআই!

বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া সহ-সভাপতি রাজীব শুক্লা বিদেশে খেলা ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগ সম্পর্কে একটি বড় বিবৃতি দিয়েছেন। আসলে এমন এক অনুষ্ঠানে তাঁর বক্তব্য এসেছে।

আগামী বছর যখন দক্ষিণ আফ্রিকায় টি-টোয়েন্টি লিগ খেলার কথা। আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো এই লিগে দল কিনেছে। তখন থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছিল যে টি-টোয়েন্টি লিগের উদ্বোধনী মরসুমে ধোনি সিএসকে ফ্র্যাঞ্চাইজি-মালিকানাধীন দল জোহানেসবার্গ সুপার কিংসের মেন্টর হতে পারেন।

তবে, ভারতীয় খেলোয়াড়রা বিদেশী লিগে অংশ নিতে পারবেন না বলে রাজীব শুক্লার বক্তব্যের পরে বিষয়টি অনেকাংশে পরিষ্কার হয়ে গেছে। ক্রিকেট বিশ্বে আইপিএলের পর বিদেশি লিগগুলোও গতি পেয়েছে। প্রায় প্রতিটি দেশেই আইপিএলের আদলে টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজন করা হচ্ছে।

যদিও বিশ্বের সবচেয়ে বড় লিগ আইপিএলকে সামনে রেখে এই বিদেশি লিগগুলো কোথাও থাকে না। যে কারণে ভারতীয় খেলোয়াড়রা কোনো বিদেশি লিগে অংশগ্রহণ করেন না। আমরা আপনাকে বলি যে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ) আগামী বছর টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজন করতে চলেছে।

যা নিয়ে আলোচনার বাজার সরগরম। সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করা হচ্ছিল এই লিগে ভারতীয় খেলোয়াড়দের খেলতে দেখা যাবে। যা নিয়ে বিসিসিআই-এর সহ-সভাপতি রাজীব শুক্লা বড়সড় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, “আমরা বিদেশে অন্য কোনো ক্রিকেট লিগে আমাদের খেলোয়াড়দের সরবরাহ করি না।

এ ব্যাপারে আমাদের একটি সরল নীতি রয়েছে। আমাদের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ নিজেই একটি বড় লিগ এবং আমরা আমাদের কোনো খেলোয়াড়কে কোনোভাবেই কোনো বিদেশি লিগের সঙ্গে যুক্ত হতে দিতে পারি না।”

2023 সালের জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার টি-টোয়েন্টি লিগ সরাসরি সংযুক্ত আরব আমিরাতের আন্তর্জাতিক লীগ টি-টোয়েন্টির সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে, যা আগামী বছরের জানুয়ারিতেও অনুষ্ঠিত হবে।

ওই সময় দুটি লিগই চলবে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত ক্রিকেট বোর্ড তাদের টি-টোয়েন্টি লিগ আগামী বছর শুরু করার ঘোষণা দিয়েছে।

চেন্নাই সুপার কিংস, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স, রাজস্থান রয়্যালস এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সের মতো আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি এই দুটি লিগেই দল কিনেছে।

একই সময়ে, আশা করা হয়েছিল যে ভারতীয় খেলোয়াড়দেরও এই দুটি টুর্নামেন্টে খেলতে দেখা যাবে, কিন্তু রাজীব শুক্লার বক্তব্যে স্পষ্ট হয়ে যেত যে বিসিসিআই ভারতীয় খেলোয়াড়দের কোনও মূল্যে বিদেশী লিগে অংশগ্রহণের অনুমতি দেবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.