ধাওয়ান-গিলকে আউট করতে পারলো না জিম্বাবোয়ের কোনো বোলার!

প্রথমে বোলারদের দাপটে জিম্বাবোয়েকে মাত্র ১৮৯ রানে আটকে রাখল ভারত। পরে রান তাড়া করতে নেমে অর্ধশতরান করলেন ভারতের দুই ওপেনার। প্রথম ম্যাচে জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে সহজ জয় পেল ভারত।

প্রথমে বোলারদের দাপটে জিম্বাবোয়েকে মাত্র ১৮৯ রানে আটকে রাখলেন দীপক চাহার, প্রসিদ্ধ কৃষ্ণরা। পরে রান তাড়া করতে নেমে অর্ধশতরান করলেন ভারতের দুই ওপেনার শিখর ধবন ও শুভমন গিল। দুই ব্যাটারের দাপটে ১০ উইকেটে জিতল ভারত।

টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন ভারতীয় অধিনায়ক লোকেশ রাহুল। প্রথম থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেন দীপক চাহার ও মহম্মদ সিরাজ। দীর্ঘ দিন পরে চাহার খেলতে নামলেও দেখে মনে হল না কোনও সমস্যা হচ্ছে।

দু’দিকে সুইং করাচ্ছিলেন তিনি। ভারতীয় বোলারদের সামনে অসহায় আত্মসমর্পণ করেন জিম্বাবোয়ের ব্যাটাররা। কাইয়া, মারুমানি, মাধেভেরে, উইলিয়ামস কেউ রান পাননি। মাত্র ৩১ রানে ৪ উইকেট পড়ে যায় তাদের।

জিম্বাবোয়ের হয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ভাল খেলা সিকন্দর রাজাও রান পাননি। অধিনায়ক চাকাভা ৩৫ রান করেন। শেষ দিকে ব্র্যাড ইভান্স ৩৩ ও এনগারাভা ৩৪ রান করেন। ৪০.৩ ওভারে ১৮৯ রানে অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবোয়ে।

ভারতের হয়ে চাহার, প্রসিদ্ধ ও অক্ষর তিনটি করে উইকেট নেন। ভারতের হয়ে শিখর ধবনের সঙ্গে রান তাড়া করতে নামেন শুভমন গিল। প্রথম থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে শুরু করেন তাঁরা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ধবন যেখানে শেষ করেছিলেন সেখান থেকেই শুরু করলেন তিনি। মাঠের সব দিকে রান করছিলেন তিনি। কোনও বোলার তাঁকে সমস্যায় ফেলতে পারেনি। এক দিনের ক্রিকেটে নিজের ৩৮তম অর্ধশতরান করলেন ধবন।

প্রথমের দিকে কিছুটা ধীরে খেললেও পরে বড় শট খেলা শুরু করেন শুভমন। তিনিও অর্ধশতরান করেন। ৫০ করার পরে রানের গতি বেড়ে গেল এই ডান হাতি ব্যাটারের। শেষ দিকে বেশ কয়েকটি বড় শট খেলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৩০.৫ ওভারে ১০ উইকেটে ম্যাচ জিতে গেল ভারত। ধবন ৮১ ও শুভমন ৮২ রান করে অপরাজিত থাকলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.